কাভেকো কথন


সোনালী অতীত

কাভেকোর জন্ম ১৩২ বছর আগে ১৮৮৯ সালে জার্মানির হাইডালবারগে, যখন হেইনরিখ কচ আর রুডালফ ওয়েবার একটা ডিপ পেন ফ্যাক্টরি কিনে নেন। তাদের সেই ফ্যাক্টরির নাম ছিল হাইডালবারগ ডিপ পেন ফ্যাক্টরি (Heidelberger Federhalterfabrik) সংক্ষেপে HF, HF এর অধীনে ৩টা ব্র্যান্ড - পারকিও, ওমেগা এবং কাভেকো। পরে অবশ্য, কাভেকো নামটাই কোম্পানির নাম হয়ে যায়।
১৯০৯ এ কাভেকো তাদের প্রথম সেইফটি ফাউন্টেন পেন তৈরি করা শুরু করে, প্রচণ্ড রকমের জনপ্রিয় হওয়ায় অল্প সময়ের মাঝেই কাভেকো তাদের প্রডাকশন বৃদ্ধি করে এবং তাদের প্রধান পার্টস প্রভাইডার A. Morton & Co কে কিনে নেয়, যা ছিল তখনকার সময়ে নিউ ইয়র্কের সবচেয়ে পুরনো গোল্ড নিব প্রস্তুতকারক। এ. মরটনের সব মেশিনারি আর আনুশাঙ্গিক জিনিসপত্র জাহাজে করে হাইডালবারগে নিয়ে আসা হয়, আর কাভেকো তাদের নিজেদের নিব নিজেরাই তৈরি করা শুরু করে। কাভেকোই প্রথমবারের মত ইউরোপিয়ান মার্কেটে পকেট ফাউন্টেন পেন আনে, যার প্রধান টার্গেটেড কাস্টমার ছিল, মহিলা, চাকুরীজীবী এবং স্পোর্টস পারসন।
১৯২১ এ যখন কাভেকো PLC লিস্টেড হয়, তখন তাদের বাৎসরিক প্রোডাকশন ১,৩০,০০০ পিস আর এমপ্লয়ির সংখ্যা ৬০০জন।
১৯২৯ সালে, Knust, Woringen & Grube এর মালিক ফ্রেদরিখ গ্রুব কাভেকোকে কিনে নেন। কাভেকোর লোগোটাকে নতুন করে ডিজাইন করা হয়, KA WE CO, যা এখনও পর্যন্ত চলছে।
.

২য় বিশ্বযুদ্ধ

২য় বিশ্বযুদ্ধ চলাকালীন কাভেকো কাঁচামাল আর ম্যান পাওয়ারের সল্পতায় প্রোডাকশন বন্ধ করে দিতে বাধ্য হয়। আর ১৯৪৫ এর অক্টোবরে, ব্যাবসা বন্ধ করে দেয়। ফ্রেদরিখ গ্রুবারের দুর্ভাগ্য, তিনি কাভেকোর সুদিন দেখে যেতে পারেন নি। তার মৃত্যুর পর, তার ছেলে উইলহেলম ফ্যাক্টরি চালু করেন, তিনি কাভেকোর ডিজাইনে বেশ পরিবর্তন আনেন, আরও স্লিম, আরও স্ট্রিম লাইন্ড করেন।
১৯৭১ সালে, কাভেকোর জন্য একটা সুযোগ আসে, মিউনিখের অলিম্পিক গেমসে লাইসেন্সড রাইটিং ইন্সট্রুমেন্ট কোম্পানি হিসেবে তারা চুক্তিবদ্ধ হয়। কাভেকো সে বছর তাদের স্পোর্টস সিরিজ বাজারে আনে। এবারও তারা বাজারে এতটাই সাড়া ফেলে যে অন্যান্য ব্র্যান্ড তাদের সাথে এডভারটাইজিং মিডিয়াম হিসেবে চুক্তি করে, কাভেকোর ‘কো ব্রান্ডিং’ এর সূচনা তখন থেকেই।
.

গুটবারলেট যুগের সূচনা

মাইকেল গুটবারলেট পরিবার কাভেকোকে কিনে নেন ১৯৯০সালে। বস্তুত তিনিই কাভেকোকে আধুনিক দুনিয়ায় ফিরিয়ে নিয়ে আসেন। মাইকেল আর তার বাবা ছিলেন কাভেকো নাট। তাদের ব্যাক্তিগত সংগ্রহে তখনই ছিল ৩,০০০ এর বেশী কাভেকো কলম। আর তাদের কোম্পানি H&M Gutberlet GmbH প্রধানত কসমেটিক কোম্পানি হলেও, বেশ কয়েকটা কলম কোম্পানির জন্য প্রয়োজনীয় পার্টস সাপ্লাই দিতো তারা। যে কারনে, পৃথিবীর কলম সাপ্লাই চেইনের ৯৯% ই যেন জানা ছিল তাদের। তাই সুযোগ লুফে নিতে ছাড়লেন না এই পরিবার।
Kaweco
মাইকেলের হাতে ধরেই কাভেকোর পকেট ইন্সট্রুমেন্ট হিসেবে বাজারে আসে রোলারবল, বল পেন, মেকানিক্যাল পেন্সিল, ক্লাচ পেন্সিল।
মাঝে ডিপ্লম্যাট ব্র্যান্ড কাভেকোর এক্সক্লুসিভ সেলস পার্টনার হিসেবে ছিল, কিন্তু ১৯৯৯তে হারলিতজ কিনে নেয় ডিপ্লম্যাটকে, আর তারপর থেকে কাভেকো নিজেই নিজের ডিস্ট্রিবিউশান চালাচ্ছে। জার্মানির নুরেম্বারগ থেকে পরিচালনা করা এই ডিস্ট্রিবিউশানে এখন পৃথিবীর ৫০টি দেশে কাভেকোর ডিলাররা উপস্থিত। বাংলাদেশে বিডি পেনস (BD Pens) কাভেকোর অথরাইজড ডিলার।
.
Author: Atiqur Rahman

Related Posts

বাবার স্মৃতিসত্তা - আমার কথা - সিদ্ধার্থ গৌতম
বাবার স্মৃতিসত্তা - আমার কথা - সিদ্ধার্থ গৌতম
১.একটি পরিণত বটগাছের দিকে তাকালে বিষ্ময়ে চোখ ভরে ওঠে। কী অপূর্ব আভিজাত্যে সে তার ডালপালাগুলো ছড়িয়ে দেয়। সম্ভ্রমে অধিক...
Read More
ফাউন্টেন পেন ১০১ - জীবনের প্রথম ইঙ্ক কেনা - আতিকুর রহমান
ফাউন্টেন পেন ১০১ - জীবনের প্রথম ইঙ্ক কেনা - আতিকুর রহমান
জীবনের প্রথম ইঙ্ক কেনা - ১। কারট্রিজ নাকি বটল ইঙ্ক? ফাউন্টেনপেনের জন্য প্রথম ইঙ্ক কেনার বেলায় আমি ইঙ্ক বোতল কেনার পরা...
Read More
ফাউন্টেনপেন ১০১ - ডাজ নিব সাইজ ম্যাটার? - আতিকুর রহমান
ফাউন্টেনপেন ১০১ - ডাজ নিব সাইজ ম্যাটার? - আতিকুর রহমান
ডাজ নিব সাইজ ম্যাটার ? বিগিনার হিসেবে ফাউন্টেন পেন কিনতে গেলে কমন একটা প্রশ্ন আসে, নিব সাইজ কি হবে? ফাইন নাকি মিডিয়া...
Read More

Leave a comment


Please note, comments must be approved before they are published